Skip to main content

Posts

Showing posts from January, 2019

প্রকাশিত হলো ভিক্ষু তন্হংকর লিখিত - ভিক্ষু জীবনের লক্ষ্য, বর্তমান ভিক্ষুসংঘ এবং একজন সংঘনায়ক শুদ্ধানন্দ মহাথেরো

ভিক্ষু জীবনের লক্ষ্য, বর্তমান ভিক্ষুসংঘ এবং একজন সংঘনায়ক শুদ্ধানন্দ মহাথেরো
ভিক্ষু তন্হংকর





রাজপুত্র সিদ্ধার্থ গৌতম জীবজগতের মুক্তির জন্য রাজত্ব, রাজসিংহাসন, সুন্দরী স্ত্রী, পুত্র, মা-বাবা, আত্মীয়-স্বজন সব ত্যাগ করেছিলেন। পৃথিবীর ধর্ম ইতিহাসে এত বড় ত্যাগের দৃষ্টান্ত হয়ত আর নেই। সংসার ত্যাগের অন্তত ছয় বছর পর বোধিজ্ঞান জ্ঞান লাভ করে তিনি সারনাথে প্রথম ভিক্ষুসংঘ প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। সংঘের উদ্দেশ্যে সেদিন বুদ্ধের নির্দেশনা ছিল বহুজনের হিতের জন্য, বহুজনের সুখের জন্য দিকবিদিক ছড়িয়ে পড়ার এবং সেই বাণী প্রচারের কথা বুদ্ধ তাঁেদর বলেছিলেন যে বাণী মানুষের আদিতে কল্যাণ, মধ্যে কল্যাণ ও অন্তে কল্যাণ বয়ে আনে। সংঘ মানে একতা। একতার শক্তি কত বেশী বুদ্ধ তা মর্মে মর্মে উপলব্ধি করেছিলেন। তাই সংঘ সৃষ্টির মধ্যে দিয়ে সদ্ধর্মকে চিরস্থায়ী করার ব্যবস্থা করেছিলেন। যেই ভিক্ষুসংঘ বৌদ্ধধর্মের ধারক ও বাহক। যাঁরা গৌতম বুদ্ধের মহাপরিনির্বাণের পরও আজ অবধি বিশে^র দরবারে বৌদ্ধধর্মকে অম্লান রেখেছে। সংসারের ভোগবিলাস ত্যাগ করে সদ্ধর্মের পথে জীবন উৎসর্গ করে বৌদ্ধধর্মের কঠিন নিয়ম-কানুনগুলো সঠিকভাবে পালন করে নিজের মুক্তির পথ রচনা…

শ্রদ্ধেয় অজিতানন্দ মহাস্থবির'র স্মৃতি সভা

নিজস্ব প্রতিবেদক, অরুপ বড়ুয়া, বুড্ডিস্ট নিউজ২৪.কম আগামী ১লা ফেব্রুয়ারী,২০১৯ইং রোজ শুক্রবার বেলা ২ঘটিকায়  বাংলাদেশ সংঘরাজ ভিক্ষু মহাসভার সভাপতি,ইছাখালী কেন্দ্রীয় অশোকারাম বিহারের অধ্যক্ষ,ধর্মরত্ন অনাথ আশ্রমের প্রতিষ্ঠাতা ও পরিচালক, রাংগুনীয়া সংঘরাজ ভিক্ষু সমিতি প্রাক্তন সম্পাদক ও সভাপতি,রাংগুনীয়া প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির প্রাক্তন সভাপতি,মানবতাবাদী ব্যক্তিত্ব,সংঘের স্বাধিকার আন্দোলনের অন্যতম মূর্ত প্রতীক,সংঘবন্ধু, ধর্মসেনাপতি ভদন্ত অজিতানন্দ মহাস্থবিরের স্মৃতি সভা নিজ জন্মভূমি রাংগুনীয়াস্থ বৃহত্তর রাজানগরের সোনারগাঁও গ্রামে অনুষ্ঠিত হবে।উক্ত অনুষ্ঠানটি অনেক প্রাজ্ঞ পন্ডিত ভিক্ষু সংঘের উপস্থিতিতে সোনারগাঁর উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ প্রাঙ্গনে মহাসমারোহে অনুষ্ঠিত হবে।

২২ শে ফেব্রুয়ারি অনু্ঠিত হবে ভন্তের জন্মজয়ন্তী

নিজস্ব প্রতিবেদক, অরুপ বড়ুয়া, বুড্ডিস্ট নিউজ২৪.কম আগামী ২২ শে ফেব্রুয়ারি, শুক্রবার কুলকুরমাই গ্রামে অনুস্ঠিত হবে রাঙ্গুনীয়া উপজেলার একজন খ্যাতিমান সংঘপুরোধা,পরম শ্রদ্ধেয় শাসনরত্ন ধর্মসেন মহাথের'র জন্মজয়ন্তী।

অন্তেষ্টিক্রিয়া অনুষ্ঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক, অর্জুন বড়য়া, নিউজ২৪.কম প্রয়াত ভদন্ত সুগন্ধা মহোদয়ের জাতীয় অন্তেষ্টিক্রিয়া অনুষ্ঠিত। গতকাল ১৮ই ইংরেজী রোজ শুক্রবার যথাযোগ্য ধর্মীয় মর্যাদায় ভন্তের অন্তষ্টেক্রিয়া অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়

শশ্মানের আলং উদ্বোধন

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাংগুনিয়া

প্রয়াত অজিতানন্দ মহাথের মহোদয়ের শবদাহ শশ্মানের আলং উদ্বোধন করেন ভদন্ত সুমঙ্গল মহাথের, এতে আরো উপস্থিত ছিলেন-ভদন্ত স্বরুপানন্দ ভিক্ষু, ভদন্ত ইনদ্রবংশ ভিক্ষু, জিবনান্দ শ্রামন,বাবু নীহার বড়ুয়া,বাবু দিপ্ত বডুয়া সহ প্রমুখ,,,,



মায়ের কোল খালি হওয়ার পর ট্রাক-কাভার্ডভ্যান চলাচল বন্ধ!!

নিউজটি সিটিজিটাইমস থেকে সংগৃহীত চট্টগ্রাম মহানগরীতে দিনের বেলায় ট্রাক ও কাভার্ড ভ্যান চলাচল নিয়ন্ত্রণে বিশেষ নির্দেশনা দিয়েছে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ (সিএমপি)। নির্দেশনায় বলা হয়েছে, প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত নগরীতে ট্রাক-কাভার্ডভ্যানের মত ভারি যানবাহন চলাচল করতে পারবে না। তবে জরুরি আমদানিকৃত খাদ্য পণ্য ও রপ্তানিযোগ্য গার্মেন্টস পণ্যবাহী যানবাহন যথাক্রমে চট্টগ্রাম চেম্বার ও বিজিএমইএ কর্তৃক ইস্যুকৃত নির্ধারিত স্টিকার লাগিয়ে বিশেষ ব্যবস্থায় চলাচল করতে পারবে। বৃহস্পতিবার (১৭ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় সিএমপি থেকে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে আরো জানানো হয়, নগরীতে দিনের বেলায় ট্রাক, কাভার্ডভ্যান, লং-ভ্যাহিকেল, প্রাইমমুভারসহ অন্যান্য পণ্য-মালবাহী যানবাহন ইত্যাদি যত্রতত্র মালামাল উঠানামাসহ অবৈধ পার্কিং-এর ফলে যানজট সৃষ্টি হচ্ছে। এতে নগরীতে দিনের বেলায় রাস্তার ধারণ ক্ষমতার অতিরিক্ত যানবাহন (যান্ত্রিক ও অযান্ত্রিক) চলাচলসহ যানবাহনের চাপ সৃষ্টির ফলে নগরীতে জনসাধারণের স্বাভাবিক চলাচলে বিঘ্ন সৃষ্টি হচ্ছে। তাই চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের ট্রাফিক-উত্তর …

মহামান্য সংঘনয়াক শুদ্ধানন্দ মহাথেরো ভন্তের ৮৭ তম জন্মদিন

নিাজস্ব প্রতিবেদক, বুড্ডিস্ট নিউজ২৪.কম
আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন সংঘ মনীষা, একুশে পদক প্রাপ্ত, ফ্রা বিশুদ্ধিবংশ, বাংলাদেশ বৌদ্ধ কৃষ্টি প্রচার সংঘের সভাপতি,অনাথপিতা মহামান্য সংঘনায়ক শুদ্ধানন্দ মহাথেরো "র ৮৭ তম জন্মদিনে বিনম্র শ্রদ্ধা। পুজনীয় ভান্তের নিরোগ দীর্ঘ জীবন কামনা করছি।

নীলফামারীর চেয়ারম্যান বাড়িতে বুদ্ধমূর্তি !!

গত ১২ জানুয়ারি নীলফামারীর ডোমার উপজেলার সোনারায় ইউনিয়ন চেয়ারম্যানের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে গভীর রাতে ১১ শতকের প্রাচীন একটি বুদ্ধ মূর্তির মাথা উদ্ধার করেছে পুলিশ।রবিবার ১৩ জানুয়ারি ডোমার থানায় এক সংবাদ সম্মেলনে ডোমার-ডিমলা সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার জয়ব্রত পাল জানান’ গত শুক্রবার উপজেলার সোনারায় ইউনিয়নের চামুয়ার বিল খননের সময় স্থানীয় এক কিশোর পাথরের এই বুদ্ধমূর্তির মাথাটি খুঁজে পায়। ঘটনা দ্রুত জানাজানি হলে কিশোরের কাছ থেকে সোনারায় ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদের ছেলে ফরহাদ এটি হাতিয়ে নেয়। মূর্তি পাওয়ার খবর পেয়ে পরদিন শনিবার বিকাল চারটা থেকে রাত দুইটা পর্যন্ত চেয়ারম্যানের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে পাথরের তৈরি মাথাটি উদ্ধার করে পুলিশ। তাৎক্ষনিকভাবে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের অধ্যাপক সীমা হক ছবি দেখে উদ্ধার হওয়া মূর্তিটি ১১ শতকের বজ্রযানী ধর্মমতের অবলোকিতেশ্বর / বলে সংবাদ সম্মেলনে জানান জয়ব্রত পাল।সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘৬ জুন চামুয়ার বিল খনন শুরু হয়। তবে মূর্তি উদ্ধারের পর কাজ আপাতত স্থগিত রাখা হয়েছে।’সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ডোমার থানার ওসি মোকছেদ আলী ও…

জোবরা গ্রামে মহতী ধর্মানুষ্ঠান আগামীকাল

নিউজডেক্স, ফেইসবুক থেকে নেওয়া সিদ্ধি পুরুষ গোবিন্দ ঠাকুর ও উপ-সংঘরাজ শ্রীমৎ গুণালংকার মহাস্থবির স্মরণে মহতী   ধর্মানুষ্ঠান      আগামীকাল ১৫ই জানুয়ারি মঙ্গলবার জোবরা গ্রামে অনুষ্ঠিত হবে। প্রতিবছরের মত এবারও উপমহাদেশের দুই দিকপাল সিদ্ধি পুরুষ পূজনীয় গোবিন্দ ঠাকুর ও উপ- সংঘরাজ শ্রীমৎ গুনালংকার মহাস্থবির স্মরণে মহতী ধর্ম সভা ১৫ জানুয়ারি ২০১৮ মংগলবার সকালে হাটহাজারী উপজেলার ঐতিহ্যবাহী জোবরা গ্রামের সবুজ প্রান্তরে দিনব্যাপী অনুষ্ঠান মালায় পালিত হবে। অনুষ্ঠানমালার মধ্যে রয়েছে অষ্টপরিস্কারসহ সংঘদান, অাটাশ বুদ্ধের পূজা, সদ্ধর্মানুষ্ঠান। এ মহতি পূণ্যানুষ্ঠানে সভাপতির আসন অলংকৃত করবেন বাংলাদেশী বৌদ্ধদের ২য় সর্বোচ্চ ধর্মীয় গুরু মহামান্য উপসংঘরাজ, শাসনশোভন ড. জ্ঞানশ্রী মহাস্থবির , প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকবেন উপসংঘরাজ, শ্রুতিধর শীলানন্দ মহাস্থবির, প্রধান ধর্মদেশক হিসাবে উপস্থিত থাকবেন উপ-সংঘরাজ ধম্মপ্রিয় মহাস্থবির সহ প্রাজ্ঞ ভিক্ষু সংঘ উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে। উক্ত পুন্যানুষ্ঠানে আপনাদের নান্দনিক উপস্থিতি কামনা করেছেন পরম সিদ্ধিপুরুষ গোবিন্দ ঠাকুর স্মৃতি মন্দির পরিচালনা কমিটি।

প্রয়াত ভদন্ত সুগন্ধা মহাথেরো মহোদয়ের জাতীয় অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া অনুষ্ঠান

আসছে আগামী ১৭ও১৮ই জানুয়ারি রোজ বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার ঐতিয্যবাহী,পূণ্যভূমি খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলাধীন সদ্ধর্মগ্রাম কমলছড়ি হেডম্যান পাড়ায় বিশিষ্ট সাংঘিক ব্যক্তিত্ব, সমাজ সংস্কার শাসন সদ্ধর্মের কল্যাণে নিবেদিত ত্যাগী পূণ্য পুরুষ, খাগড়াছড়ি ভিক্ষু এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ এর সম্মানিত আজীবন সাংগঠনিক সম্পাদক, কমলছড়ি পাড়া ধর্মসুখ বৌদ্ধ বিহারের পরম পূজনীয় বিহার ধ্যক্ষ বিনয়শীল সম্পন্ন আবাল্য ব্রক্ষচারী প্রয়াত ভদন্ত সুগন্ধা মহাথেরো মহোদয়ের জাতীয় অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া অনুষ্ঠান ২০১৯ খ্রিস্টাব্দ অনুষ্ঠিত হবে।  উক্ত অনুষ্ঠান কে ঘিরে চলছে উদযাপন কমিটির সর্বশেষ প্রস্তুতি, উক্ত অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া অনুষ্ঠান সুন্দর ও সার্থক করে তুলার জন্য সকল বৌদ্ধ জাতিদেরকে সর্বাঙ্গীণ সহযোগিতা এবং উপস্থিতি কামনা করেছেন। প্রথমদিন- সংঘদান অনুষ্ঠানও ধর্ম দেশনা ১৭-১-২০১৯ দ্বিতীয়দিন-অন্ত্যেষ্টিক্রয়া অনুষ্ঠান ১৮-১-২১৯ বি-দ্র: সন্ধ্যায় হাজারো ফানুশ বাজি উত্তলন করা হবে উত্ত অনুষ্ঠানে কোন ব্যক্তি সহযোগিতা করে পূণ্যময় সঞ্চয় করতে ইচ্ছু থাকলে যোগাযোগ করতে পারেন যোগাযোগ :Yesa Bikkhu-01559791895 Uhala Pru Marma:01772957907 স্থান :কমলছড়ি ভূয়াছড়…

শ্রদ্ধেয় আনন্দমিত্র ভান্তের পরলোকগমন

নিউজ ডেক্স 

সাতবাড়ীয়া শান্তি বিহার এর প্রাক্তন অধ্যক্ষ,বর্ষীয়ান সাংঘিক ব্যক্তিত্ব, ভদন্ত আনন্দ মিত্র মহাস্থবির  আর নেই। (অনিচ্ছা বত সংখারা………….) নগরীর পাঁচলাইশে একটি বেসরকারি ক্লিনিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রবিবার (১৩ জানুয়ারি) দিনগত রাত ১২টার দিকে ভদন্ত আনন্দমিত্র মহাস্থবির পরলোকগমন করেন । দীর্ঘদিন থেকে তিনি বিভিন্ন  দুরারোগ্য ব্যাধিতে আক্রান্ত ছিলেন। ভান্তের নির্বাণ সুখ কামনা করি। ভান্তের পরলোকগমণে বুড্ডিস্ট নিউজ24.কম গভীরভাবে শোকাহত।

বনভান্তের মূর্তি নির্মিত হচ্ছে কাপ্তাই হ্রদ এর দ্বীপে

নিউজ ডেক্স 
বনভান্তের মূর্তি নির্মিত হচ্ছে কাপ্তাই হ্রদ এর দ্বীপে। রাঙামাটি শহরের অদুরে রাঙামাটি সুবলং যাওয়ার মাঝপথে বালুখালীর নির্বাণ নগর বনবিহার প্রাঙ্গনে এ মূর্তিটি শনিবার দুপুর ১২ টায় উদ্বোধন করেন বনভান্তের অন্যতম শিষ্য ধর্মতিষ্য স্বর্গপুরী মহাস্থবির। এ সময় হাজারো পূন্যার্থীর সাধুবাদে মুখরিত হয় নির্বাণ নগর বন বিহার এলাকার আশপাশ। 

বনভান্তের মূর্তির পাশে নির্মিত হয় সু-উচ্চ গৌতম বুদ্ধের মূর্তি। এ দৃষ্টি নন্দন এ মুর্তিগুলো দেখতে পূণ্যার্থীদের পাশাপাশি ভিড় করেন পর্যটকেরাও। 

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে দেশের শান্তি সম্মৃদ্ধি ও মঙ্গল কামনা করেন দিনব্যাপী অনুষ্ঠানে পঞ্চশীল প্রার্থনা, বুদ্ধের পুজা, প্রদীপ প্রজ্জলন, বুদ্ধ সংগীত পরিবেশন,  মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

উল্লেখ্য, মুর্তিটি উচ্চতায়  ২৪ফুট। বনভান্তের দন্ডায়মান মুর্তি এলাকার জনগনের প্রচেষ্টায় প্রায় ২৫ লক্ষ টাকা ব্যয়ে নির্মাণ করা হয়েছে।

বৌদ্ধরা ঈশ্বরবাদী নয়,নিজেই নিজের মুক্তিদাতা

লিখেছেনঃ সুমন রাজ বড়ুয়া

জগত জুড়ে যত ধর্মের উৎপত্তি, সৃষ্টি হয়েছে অধ্যায়ন করলে দেখা যায় তাদের মূলে কেউ ঈশ্বর পুত্র,কেউ ঈশ্বরের পুত্র,কেউ ঈশ্বরের দেবতা আবার কেউ বা ঈশ্বরের অবতার। কিন্তুু বৌদ্ধধর্ম উৎপত্তির মূলে কোন ঈশ্বর পুত্র বা দেবতা,অবতার নাই।মানব কুলের দুঃখ যন্ত্রনা দেখে রাজপুত্র সিদ্ধার্থ রাজ প্রসাদ ছেড়ে বৈরাগ্য জীবন বেছে নিয়েছিলেন। সকল জীবের প্রতি মৈত্রী,করুণা দিয়ে জয় করেছিলো মানবের মুক্তির পথ।যে মুক্তি সকল মানবের ইহলোক ও পরলোক জীবনে দুরদশা হতে মুক্তি লাভে সক্ষম হয়েছিল।গৌতম বুদ্ধ কখনো নিজেকে ঈশ্বর বলে দাবী করেননি।একজন মানবপুত্র হিসেবে নিজের প্রাপ্ত জ্ঞানকে ছড়িয়ে দিয়েছেন মানবের মুক্তির জন্যে। বুদ্ধের সেই সম্যক জ্ঞানকে বুদ্ধধর্ম হিসেবে অভিহিত করা হয়।
বুদ্ধ ধর্মের অনুসারী হয়ে দেব,দেবতার পুজা,ঈশ্বরের পুজা করা টা যতটা বেমানান,ততটা বৌদ্ধধর্মের জন্য লজ্জাজনক, অপসংস্কৃতি।কিছু কিছু বৌদ্ধ জনপদে দেখা যায় করা হয় বিদ্যা পুজা,কার্ত্তিক পুজা,লক্ষী পুজা, মায়ের সেবায় পান তেল পুজা। আবার দেখা যায় বাড়ীতে বুদ্ধের ছবির পাশে দেব দেবী ও ঈশ্বরের ছবি।কোন ধর্ম কে হেয় করায় আমার লেখার মূল উদ্দেশ্য নয়। সব ধর…

একজন অসুস্থ অসহায় মায়ের জীবন বাঁচানোর জন্য আকুল আবেদন!

নিউজ ডেক্স
খুশী বড়ুয়া! ৫ বছরের এক ছোট্ট শিশুর জননী.. একজন মমতাময়ী মা, উনার দুইটি কিডনীই নষ্ট হয়ে গিয়েছে..জীবনপ্রদীপ নিভে যাবার পথে! ইন্ডিয়ার ভেল্যুর এর নামকরা সিএমসি হাসপাতালের বিশেষজ্ঞ ডাক্তাররা বলেছেন কেউ স্বেচ্চায় কিডনী দিতে রাজী থাকলেও শুধু কিডনী রিপ্লেসমেন্ট খরচ বাবদ প্রায় ১০ লক্ষ ইন্ডিয়ান রুপি প্রয়োজন। এত টাকা জোগাড় করা গার্মেন্টসের একজন সাধারণ বেতনভুক্ত কর্মচারী সুমনের পক্ষে অসাধ্য..তাই তিনি ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সমাজের বিত্তবান তথা দেশ-বিদেশের সকল শ্রেণী-পেশার মানুষের কাছে আকুল আবেদন জানিয়েছেন.. যোগাযোগের ঠিকানা:
রোগী-খুশী বড়ুয়া 
পিতা-মৃত অমলেন্দু বড়ুয়া(গ্রাম চরকানাই,পটিয়া),
স্বামী -সুমন বড়ুয়া 
পিতা- মৃত সুনীল কান্তি বড়ুয়া,গ্রাম-মধ্যম জোয়ারা,পোঃ-জোয়ারা,থানা-চন্দনাইশ।
চাকুরীস্হল-BMS Co ltd. CEPZ.
ফোন নং-০১৫৫৬৬০৪৭১০
A/C No-18815147671. DAS -Bangla Bank,CEPZ Branch. 
বিকাশ নং-০১৯৮০৫০৫৮১৩১৮
খুশী,একজন পাঁচ বছরের ছোট্ট শিশুর মা, একজন পরিশ্রমী স্বামীর স্ত্রী, কারো বোন কিংবা কারো আদরের সন্তান.. আমরা কোন ভাবেই চাইবো না এমন একটি জীবনের প্রদীপ অকালে নিভে যাক! চাইবো না শিশুটি হারিয়ে ফেলুক তার মাকে..…

বিনাজুরিতে আঠাশ বুদ্ধ মন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন

রাউজান এর বিনাজুরি ইউনিয়নে আঠাশ বুদ্ধের মন্দিরের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করা হয়েছে। গত রবিবার উপজেলার মধ্যম বিনাজুরীর শান্তি ধাম বিহার প্রাঙ্গণে মানবতামূলক সংগঠন একুশের আলো ফাউন্ডেশনের ট্রাষ্টী বোর্ডের চেয়ারম্যান, সুজারল্যান্ড আওয়ামী লীগ এর তথ্য ও গবেষনা সম্পাদক সসীম গৌরী চরণ বড়ুয়ার অর্থায়নে এই আঠাশ বুদ্ধের মন্দিরের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন ও কাজের শুভ সূচনা করা হয়। এই উপলক্ষে বিহার প্রাঙ্গণে বিহারাধ্যক্ষ দেবমিত্র ভিক্ষুর সভাপতিত্বে এক আলোচনা সভা অনুষ্টিত হয়। সেবামূলক সংগঠন একুশের আলো ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট প্রণব বড়ুয়ার পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন একুশের আলো ফাউন্ডেশনের ট্রাষ্টী বোর্ডের চেয়ারম্যান সসীম গৌরী চরণ বড়ুয়ার, বিহার পরিচালনা কমিঠির সভাপতি মনোহরি বড়ুয়া, সাধারণ সম্পদক রতন বড়ুয়া, যুবলীগ নেতা অলক বড়ুয়া, রিটন বড়ুয়া, বিপ্লব বড়ুয়া, ঝুন্টু বড়ুয়া, বিজায়ন বড়ুয়া, আদেশ বড়ুয়া, বিপ্লব বড়ুয়া,বাসু বড়ুয়া, প্রমুখ। সভা শেষে মানবাধিকার কর্মী সসীম গৌরিচরণ তাঁর রত্নাগর্ভা মা মিনা গৌরিচরণকে সাথে নিয়ে এই আঠাশ বুদ্ধের মন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন ও কাজের সূচনা করেন।
সংবাদ সংগ্রহে: সুমন …

নতুন রুপে তৈরি হচ্ছে জ্যৈষ্ঠপুরা কেন্দ্রীয় বৈশালী বিহার

নতুন রুপে তৈরি হচ্ছে জ্যৈষ্ঠপুরা কেন্দ্রীয় বৈশালী বিহার বোয়ালখালী জ্যৈষ্ঠপুরা কেন্দ্রীয় বৈশালী বিহার এর (স্বর্গপুরী)পূর্ণ নিমার্ণ এর কাজ এগিয়ে চলছে। আপনার শ্রদ্ধাদানের হাত ধরেই গড়ে উঠবে একটি বিহার বা একটি ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান। আপনি ও হতে পারেন বিহার প্রতিষ্ঠার পুণ্যের অংশীদার। বিহার এর স্থানঃ জ্যৈষ্ঠপুরা কেন্দ্রীয় বৈশালী বিহার, বোয়ালখালী, গোলক কানন বাজার, চট্টগ্রাম। শ্রদ্ধাদানের জন্য যোগাযোগ করুনঃ ০১৮১২৯৪৭৬৪১ (তাপস বড়ুয়া - বিহার কমিটির সাধারণ - সম্পাদক)
নিজস্ব প্রতিবেদক, বুড্ডিস্ট নিউজ২৪.কম

নামসিদ্ধী জাতক

পুরাকালে বােধিসত্ত্ব তক্ষশিলা নগরে একজন বিখ্যাত আচার্য ছিলেন। পাঁচশতশিষ্য তাঁর বিদ্যাভ্যাস করত। এই সব ছাত্রদের মধ্যে একজনের নাম ছিল পাপক। অন্যান্য ছারা তাকে সব সময় ‘এস পাপক’, যাও পাপক বলত। তাতে পাপক চিন্তা করতে লাগল, আমার নাম অমঙ্গল সূচক। অতএব আমি অন্য একটি নাম গ্রহণ করব। পাপক তাই আচার্যের কাছে গিয়ে বলল, গুরুদেব, আমার বর্তমান নামটা অমঙ্গলসূচক। আমার অন্য একটি নাম রাখুন। আচার্য বললেন, যাও, তুমিজনপদে গিয়ে ঘুরে একটা মঙ্গল সূচক নাম ঠিক করে এস। তুমি ফিরে এলে তােমারবৰ্তমান নামটা পরিবর্তন করে অন্য নাম রাখব। পাপক তখন যাত্রা শুরু করল। সে গ্রামে গ্রামে ঘুরে একটি নগরে গিয়ে উপস্থিত হলাে। সেই নগরে জীবক নামে একৰ্তি লােকের মৃত্যু হয়েছিল সেদিন। সুতি কুলগণ তার সৎকারের জন্য তার মৃতদেহ নিয়ে যাচ্ছে দেখে পাপক জানতে চাইল, এই লােকটির নাম কি ছিল?তারা বলল, এর নাম ছিল জীবক। পাপক তখন আশ্চর্য হয়ে বলল, সেকি! জীবক মানেই ত যে দীর্ঘজীবি। সেই জীবকেরও মৃত্য হলাে। তখন সেই শবযাত্ররা বলল, জীবকেরও মৃত্যু হয়, অনীকেরও মৃত্যুহয়। মরা বাঁচা কি নামের উপর নির্ভর করে নাম তাে কোন বস্তু বা ব্যক্তিকেছেনার বা জানার একটা উপায়…

কামনাহীন জাতক

পুরাকালে যখন ব্রম্মদত্ত বারণসী রাজা ছিলেন তখন বোধিসত্ত্ব কাশীরাজ্যে এক ব্রাম্মণবংশে জন্মগ্রহন করেন। বয়ঃপ্রাপ্তির পর তিনি বিষয় কামনা ত্যাগ করে ঋষিপ্রবজ্যা গ্রহন করেন এবং হিমালয় প্রদেশে অবস্থান করতে থাকেন। কিছুকাল পর তিনি পরবত হতে নেমে এসে রক গ্রামের নিকট গঙ্গার রক বাঁকের মাথায় এক পর্ণশালা নির্মাণ করে বাস করতে লাগলেন।
এইসময় এক পরিব্রাজক তাঁর সঙ্গে বিচার করতে সক্ষম এমন কোন লোক খুঁজে পাচ্ছিলেন না। একদিন সেয় পরিব্রাজক সেই গ্রামে এসে উপস্থিত হলেন। তিনি গ্রামবাসী থেকে জিজ্ঞেস করলেন, আমার সঙ্গে বিচার করতে পারে এমন লোক এখানে আছে কি?
গ্রামবাসীরা বলল, আছের বৈকি। এই বলে তারা বোধিসত্ত্বের বিচার ক্ষমতা বর্ণনা করতে শুরু করল। তখন সেই পরিব্রাজক অনেক লোক জনের সাথে বোধিসত্ত্বের নিকট বনে গেলেন। তারপর তাঁকে সম্ভাষণ করে আসন গ্রহন করলেন। বোধিসত্ত্ব তার অভিপ্রায় বুজতে পেরে জিজ্ঞাসা করলেন। আপনি বনগন্ধজুক্ত জল পান করবেন কি?? পরিব্রাজক তাঁকে মায়াজালে আবদ্ধ করার জন্য বললেন, গঙ্গা জল কি? গঙ্গা কি বালুকা না জল? গঙ্গা বলতে এপার বুঝায় না ওপার বুঝায়?
বোধিসত্ত্ব উত্তর করলেন, যদি আপনি বালুকা, জল, এপারওপার বাদ দেন, তাহলে গ…

শ্রদ্ধেয় বনভান্তের শততম জন্মোৎসব পালিত

নিউজ ডেক্স

যথাযোগ্য ধর্মীয় মর্যাদায় একশতম জন্মবার্ষিকী পালিত হলো আর্য্যপুরুষ শ্রীমৎ সাধনানন্দ মহাস্থবির বনভান্তের মঙ্গলবার আনুষ্ঠানিকভাবে পূজ্য বনভন্তে'র পবিত্র দেহধাতুর সমীপে পূণ্যক্ষেত্র ভিক্ষুসংঘ এবং শ্রামণসংঘের পুষ্পাঞ্জলি নিবেদনের মাধ্যমে শুরু হয় আর্য্যপুরুষ শ্রীমৎ সাধনানন্দ মহাস্থবির বনভান্তের একশতম জন্মবার্ষিকী ৷ অতঃপর রাজবন বিহার উপাসক-উপাসিকা পরিষদ, সম্মানিত ব্যক্তিবর্গ ও আপামর জনসাধারণ কর্তৃক পুষ্পাঞ্জলি অর্পন দ্বারা শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয় ৷ পরম পূজনীয় বনভন্তে'র ১০০তম শুভ জন্মদিনের কেক কাটেন বনভন্তে'র শিষ্যসংঘের প্রধান ভদন্ত প্রজ্ঞালংকার মহাস্থবির মহোদয়।

 সকাল ৯ টা শুরু হয় পরম পূজ্য বনভন্তে'র শততম শুভ জন্মদিনের মূল অনুষ্ঠান পর্ব। অনুষ্ঠানের শুরুতে রাজবন বিহারাধ্যক্ষ তথা বনভন্তে'র শিষ্যসংঘের প্রধান ভদন্ত প্রজ্ঞালংকার মহাস্থবির মহোদয় উপস্থিত সাধারণের জন্য পঞ্চশীল প্রদান করেন, তার পরপরই উপস্থিতির মাঝে মৈত্রী ভাবনার নির্দেশনা প্রদান করে কিছুক্ষণ মৈত্রী ভাবনা করান রাজবন ভাবনা কেন্দ্রের ভাবনা পরিচালক, বহু পিটকীয় গ্রন্থের অনুবাদক, বনভন্তে'র দেশনা সংকলক এবং অ…

দু বাংলার দুই ভিক্ষুর কুশল বিনিময়

ভারতীয় সংঘরাজ ভিক্ষু মহাসভার সহকারী সাধারণ সম্পাদক, কলকাতা, টালিগঞ্জ হ্যামিন্টনগঞ্জ পুণ্যজ্যোতি বৌদ্ধ বিহারের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ পরম শ্রদ্ধেয় ড. অরুণজ্যোতি থেরো মহোদয়ের সাথে আশীর্বাদ গ্রহণ, কুশল বিনিময় ও বুদ্ধগয়া পদব্রজে গমনে দিকনির্দেশনা আলাপনে পূজনীয় ধুতাঙ্গ সাধক ভদন্ত শরণংকর থের মহোদয় ৷
সংগ্রহে: অরুপ বডুয়া প্রিতম ( বুড্ডিস্ট নিউজ ২৪.কম প্রতিনিধি)

বাশখালীর শীলকুপ বিহারের শ্রদ্ধেয় আনন্দমিত্র ভান্তে মেডিকেল কলেজ এ ভর্তি

নিউজ ডেক্স

বাশখালীর শীলকুপ বিহারের শ্রদ্ধেয় আনন্দমিত্র ভান্তে এখন #চট্টগ্রাম মেডিকেলে ভর্তি আছে ২৫নং ওয়ার্ডে। দীর্ঘদিন যাবত তিনি দূরারোগ্য ব্যাধিতে আক্রান্ত ছিলেন। আসুন সকলেই বাশখালীর শীলকুপ বিহারে অসুস্থ শ্রদ্ধেয় আনন্দমিত্র মহাথেরো ভান্তেকে যতটুকু পারি সহযোগীতা করি।

বনভান্তে শিষ্যসংঘ বাংলাদেশ-এর ২০তম মহামিলনী সভা ২০১৯ অনুষ্ঠিত

পাহাড়ে আলো ছড়িয়ে পড়ুক আলোকিত ব্যাক্তির হাত ধরে

যাদের ত্যাগের কারণে বিদ্যুৎ পেলাম দেশে সেই তাদেরকেই বিদ্যুৎহীন করে রাখা হলো কেন ? খাগড়াছড়ি মাণিকছড়ি গচ্চাবিলস্থ প্রজ্ঞালোক শান্তপদ মেডিটেশন সেন্টার পরিদর্শনে গিয়ে সেখানকার দুস্থদের জন্য কম্বল বিতরণের সময় বুঝলাম এলাকাটিতে বিদ্যুৎ নাই। চট্টগ্রাম খাগড়াছড়ি মেইনরোড থেকে মাত্র এক কিলোমিটার ভিতরে এখনো কিভাবে বিদ্যুৎ পৌছায়নি সেটা ভেবে অবাক হই। যে কাপ্তাই জলবিদ্যুৎ উৎপাদনের জন্য বিশাল পার্বত্য এলাকার হাজার হাজার আদিবাসী উদ্বাস্তু হয়েছিল বসত ভিটা হারিয়ে ভারতে শরনার্থি হয়েছিল সেই পার্বত্য এলাকাতে বেশীরভাগ এলাকাতে এই আদিবাসীরাই যদি বিদ্যুৎ থেকে বন্চিত হয় এর চেয়ে বড় প্রপঞ্চনা আর কি হতে পারে। মাত্র এক কিলোমিটার বিদ্যুৎ লাইন যেতে যুগের পর যুগ চলে যায় কেন? কেন এ বঞ্চনা? পাহাড়ী পাড়াটির ছোট ছোট ছেলেমেয়েরা তীব্র অভাবেও অনেক দূরে গিয়ে স্কুল কলেজে যায়।বিদ্যুত না থাকাতে রাতে পড়াশুনা করা তাদের জন্য একপ্রকার অসম্ভবই বলা যায়।ছেলেমেয়েরা ধ্যানকেন্দ্র ও বিহারটিতে এসে পড়াশুনা করে। তাই অন্তত তারা যাতে পড়তে পারে ধ্যানকেন্দ্রের পরিচালক বিনয়ালংকার ভিক্ষুর পরামর্শে আমরা একটা সোলার সিস্টেম বিদ্যুৎ ব্যবস্থা সেখ…

প্রতিনিধি চাচ্ছি

বুড্ডিস্ট নিউজ ২৪.কম অনলাইন নিউজ পোর্টাল এর জন্য গ্রাম, শহর, ইউনিয়ন, ও জেলা ভিত্তিক, ও প্রবাসী প্রতিনিধি চাচ্ছি, আপনিও হতে পারেন একজন বৌদ্ধ সংবাদকর্মী ৷ প্রতিনিধি হতে আপনি এ https://goo.gl/forms/IIr904LfY5DMdyuA2 লিংক এ প্রবেশ করে প্রতিনিধি হতে রেজিষ্ট্রেশন করুন ৷ আপনার মাধ্যমে আপনার এলাকার বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের ঘটে যাওয়া কোন সংবাদ, অনুসরণীয় কোন ব্যাক্তি, বিহার, সংগঠন, ফটো ফিচার, প্রকাশিত হবে আমাদের অনলাইন ঠিকানায় ৷

আলোক প্রদীপের আলোয় আলোকিত নতুন বর্ষ

নিউজ ডেক্স: ত্রিরন্ত সংঘের মহিলা সদস্যদের উদ্যোগে ইংরেজি নতুন বর্ষবরণের আয়োজনে গত ১লা জানুয়ারি চট্রগ্রামের নন্দনকানন বৌদ্ধ বিহারে বিশ্ব শান্তি কামনায় আলোক প্রদীপ প্রজ্জলিত হয়৷ প্রদীপ প্রজ্জলনের প্রাককালে সমবেত প্রার্থনা অনুষ্ঠিত হয়, এতে উপস্থিত ছিলেন সংঘরাজ ভিক্ষু মহাসভার উপসংঘরাজ ও নন্দনকানন বৌদ্ধ বিহারের উপাধ্যক্ষ শাসন শোভন ভদন্ত জ্ঞানশ্রী মহাথের, ভদন্ত দেবমিত্র ভিক্ষু, ভদন্ত প্রিয়বংশ ভিক্ষু ৷