Skip to main content

Posts

Showing posts from October, 2019

মিয়ানমারে ১৫ বৌদ্ধ পুণ্যার্থীর মৃত্যু

মিয়ানমারের পূর্বাঞ্চলে একটি ট্রাক খাদে পড়ে এক ভিক্ষুসহ অন্তত ১৫ জন বৌদ্ধ পুণ্যার্থী নিহত হয়েছে। সোমবার সন্ধ্যায় শান রাজ্যে একটি ধর্মীয় উৎসব থেকে ফেরার পথে ট্রাকটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে পড়ে যায়। মঙ্গলবার মিয়ানমার পুলিশ এই তথ্য জানিয়েছে। বার্তা সংস্থা এএফপিকে পুলিশ কর্মকর্তা মুইন্ট সোয়ে বলেছেন, ট্রাকটিতে ২৫জন লোক ছিল। নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে তা খাদে পড়ে যায়। দুর্ঘটনাস্থলে ১৫ জন নিহত হয়েছেন এবং অপর দশজন আহত হয়েছেন। পুলিশ কর্মকর্তা জানান, প্রত্যন্ত ও পাহাড়ি অঞ্চল হওয়ার কারণে রাতে উদ্ধার অভিযান পরিচালনা করা ঝুঁকিপূর্ণ। গ্রীষ্মকালে বৌদ্ধ সংখ্যা গরিষ্ঠ মিয়ানমারে ধর্মীয় উৎসবে যোগ দিতে কয়েক লাখ মানুষ বিভিন্ন স্থানে যাতায়াত করেন। তবে কম খরচে যাতায়াতের জন্য এবং দেশটির সড়কের নিরাপত্তা ব্যবস্থা উন্নত না হওয়ায় প্রায়ই দুর্ঘটনা ঘটে।
সংগ্রহে: বাংলা ট্রিবউন 

ফতেনগর 'ত্রিরত্ন সেবক সংঘের' কমিটি গঠিত

বিগত ২৫ অক্টোবর ২০১৯ তারিখে ফতেনগর গ্রামের পূর্ব সুনীতি বিহার কেন্দ্রিক নতুন সংগঠন ‘ত্রিরত্ন সেবক সংঘের’ কমিটি গঠন সু-সম্পন্ন হয়েছে। এতে সকলের মতামতের ভিত্তিতে মাননীয় সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হন তরুণ সমাজ সেবক বাবু রাজীব বড়ুয়া এবং সাধারণ সম্পাদক হিসেবে বাবু সুপন বড়ুয়াকে কমিটির সদস্যরা নির্বাচিত করেন। সমাজে উন্নয়ন বাস্তবায়নের লক্ষ্যে এই সংগঠন কাজ করে যাবে এই মতাদর্শে বিশ্বাসী হয়ে সংগঠনকে এগিয়ে নিয়ে যাবে এটাই সদস্যদের মূল উদ্দেশ্য। এছাড়াও কমিটিতে অন্যান্য কর্মকর্তাদের তালিকা প্রদান করা হলো সভাপতিঃ- ১)রাজীব বড়ুয়া ২)হিরু বড়ুয়া সাধারণ সম্পাদকঃ- ১) সুপন বড়ুয়া(সুমন) ২)ছোটন বড়ুয়া অর্থ সম্পাদকঃ- ১)জনি বড়ুয়া ২)সুমন বড়ুয়া সাংগঠনিক সম্পাদকঃ- ১)শংকর বড়ুয়া ২) সাংস্কৃতিক সম্পাদকঃ- ১)রনি বড়ুয়া ২)ওমান বড়ুয়া প্রচার সম্পাদকঃ- ১)রাসেল বড়ুয়া ২)জ্যোতি বড়ুয়া ৩)অমিত বড়ুয়া ৪)সুমিত বড়ুয়া ৫)সনি বড়ুয়া ৬)বিজয় বড়ুয়া ধর্মীয় সম্পাদক ১ত্রিদীপ বড়ুয়া ২)জুয়েল বড়ুয়া

বাঁশখালী শীলকূপ জ্ঞানোদয় বিহার এর কঠিন চীবর দান ২০১৯

এই সপ্তাহের কঠিন চীবর দানোৎসব ২৬শে অক্টোবর-১লা নভেম্বর

২৬ অক্টোবর (শনিবার): চট্টগ্রাম সার্বজনীন বৌদ্ধ বিহার, দক্ষিণ মরিচ্যা বেনুবন বিহার, মকুটনাইট গৌতম বিহার, পূর্ব জোয়ারা সন্তোষ বিহার, কাঞ্চননগর সার্বজনীন কানকারাম বিহার, বাঁশখালী শীলকূপ জ্ঞানোদয় বিহার, পশ্চিম শিলক সার্বজনীন বনরত্ন বিহার, পশ্চিম আধার মানিক সম্বোধি বিহার, খৈয়াখালী রত্নাঙ্কুর বিহার, বরিয়া মনােরঞ্জন বিহার, আধার মানিক সোরৎসিং বিহার, ফরাঙ্গীরখীল গৌতমমুনি বিহার, জোবরা সুগত বিহার, কুমিল্লা সংঘরাজ জ্যোতিঃপাল কনকচৈত্য বিহার, সারােয়াতলী ত্রিরত্ন বিহার, নারিচ্ছা সন্ধর্মজ্যোতি বিহার, করইয়ানগর চৈতন্য বিহার, সদর পৌর কেন্দ্রীয় ইছাখালী অশোকের বিহার, পশ্চিম শিলক নবরত্ন বিহার।
২৭ অক্টোবর (রবিবার): কুতুপালং ধর্মাঙ্কুর বিহার( উখিয়া), উত্তর হারবাং নবরত্ন বৌদ্ধ বিহার, জামিজুরী সার্বজনীন গৌতম বিহারি, নানুপুর চন্দ্রজ্যোতি বিহার, কুমিল্লা দুপচর তক্ষশীলা বিহার, মােহাম্মদপুর লেলিংঙ্গা পাড়া শালবন বিহার।

২৮ অক্টোবর সোমবার: রেজুরকুল ধর্মাশােক বিহার, (কোর্টবাজার), মধ্যম আধারমানিক ক্ষেমানন্দ বিহার, উমখালী তপােবন বিহার, রামু।

২৯ অক্টোবর (মঙ্গলবার): ভালুকিয়া দ্বীপচান চন্দ্রজ্যোতি বিহার, খয়রাতি প্র…

উত্তরবঙ্গের বিভাগীয় বৌদ্ধ বিহারে ১২তম শুভ কঠিন চীবর দানোৎসব পালন

খবর: তুলিপ এক্কা (রংপুর প্রতিনিধি)
বৌদ্ধদের অন্যতম জাতীয় ও ধর্মীয় উৎসব  দানোত্তম শুভ কঠিন চীবর দানোৎসব। উত্তরবঙ্গের বিভাগীয় হিরোয়োশি জে এস ফুকুই বৌদ্ধ বিহারে ১২তম শুভ কঠিন চীবর দানোৎসব ও বৌদ্ধ ধর্মীয় সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয় ২৫শে অক্টোবর ২০১৯ইং। 
রংপুর জেলার সদর উপজেলার উত্তর শেখপাড়ায় অবস্থিত হিরোয়োশি জে,এস ফুকুই বৌদ্ধ বিহার। এটি ২০০৫ সালে স্থাপিত হয়, কিন্তু মূলকার্যক্রম শুরু হতে এক-দু বছর দেরি হয়। এই বিহারটি উত্তরবঙ্গের বিভাগীয় বৌদ্ধ বিহার নামে পরিচিত। 
বৃষ্টির কারণে দানোৎসব অনুষ্ঠানটি  সঠিক ভাবে না হলেও ধর্মীয় কার্যক্রমগুলো সঠিকভাবে করা হয়। সকালে সংঘদান ও বিকালে চীবর দানোৎসব করা হয়। উক্ত সংঘদান এবং দানোৎসব এ উপস্থিত ছিলেন, কুড়াপাড়া নব শালবন বৌদ্ধ বিহারের বিহার অধ্যক্ষ সুমানন্দ ভিক্ষু, সাহাপুর মহাবন এবং আমোদপুর তপোবন বৌদ্ধ বিহারের বিহার অধ্যক্ষ সংঘরত্ন ভিক্ষু, ছাতনীপাড়া বিহারের অধ্যক্ষ ঔনাসারা ভিক্ষু, পীরপাল পদ্মবিণা বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ শাসন রক্ষিত ভিক্ষুমহাদোয়।   সভাপতিত্ব করেন, উত্তরবঙ্গের বিভাগীয় সংঘনায়ক, অধ্যক্ষ নব শালবন বৌদ্ধ বিহার, কোটবাড়ী,কুমিল্লা।

কুড়াপাড়া নব শালবন বৌদ্ধ বিহারে শুভ কঠিন চীবর দান অনুষ্ঠিত

প্রতি বছরের মতো এবারও, রংপুর জেলার বদরগঞ্জ উপজেলার কুড়াপাড়া নব শালবন বৌদ্ধ বিহারে গত ২৩ই অক্টোবর এ শুভ কঠিন চীবর দানোৎসব অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত দানোৎসব এ প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জনাব মোঃ রাকিব হাসান (ডলু) শাহ্, চেয়ারম্যান,১৫ নং লোহানীপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ,বদরগঞ্জ,রংপুর। বিশেষ অতিথি, শ্রীমৎ সংঘরত্ন ভিক্ষু, অধ্যক্ষ, আমোদপুর তপোবন বৌদ্ধ বিহার, পীরগঞ্জ,রংপুর। শ্রীমৎ ধর্ম বংশ ভিক্ষু,অধ্যক্ষ, ভয়ালপুর বিশ্বনাথ বৌদ্ধ বিহার, বদলগাছী,নওগাঁ। এই দানোৎসব এ যোগদানের জন্য রংপুর-পীরগঞ্জ-দিনাজপুর- ঠাকুরগাঁও - এবং নওগাঁ এর বৌদ্ধ বিহারে দায়ক-,দায়িকাদের অংশগ্রহণের প্রতিচ্ছবি লক্ষ্য করা যায়। দানোৎসব অনুষ্ঠানটি সুষ্ঠু ভাবে করার জন্য বদরগঞ্জ উপজেলা থেকে প্রশাসনিক কাঠামো সহযোগিতা করা হয়,যেখানে অনুষ্ঠানের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত সিকিউরিটি থাকে। যার কারণে সুন্দর সুষ্ঠু ভাবে সম্পন্ন হয়। উক্ত দানোৎসব অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন, শ্রীমৎ সুমানন্দ ভিক্ষু, অধ্যক্ষ, কুড়াপাড়া নব শালবন বৌদ্ধ বিহার, বদরগঞ্জ, রংপুর।
 News reporter (Ranpur district): tulip ekka https://www.facebook.com/tulip.acca

ঐতিহাসিক বেতাগীর সাগর বুদ্ধ

কর্ণফূলির নদীর কোল গেসে, সুজলা সুফলা গ্রাম বেতাগী ৷ যে গ্রামের একটি প্রসিদ্ধ বিহার বেতাগী সার্বজনীন রত্নাংকুর বিহার ৷ ১৯৮০ সালের সেপ্টেম্বর মাসে কর্ণফুলী নদী থেকে ডুবু গাছ সন্ধান করতে গিয়ে লাম্বুর হাটের পশ্চিম পাশে কর্ণফুলি নদী ও উঅলং খালের মুখে কালো পাথরে নির্মিত একটা বড় বুদ্ধমূর্তি পাওয়া যাই, পরবর্তিতে সে বুদ্ধমূর্তিটি সাগর বুদ্ধ নামে পরিচিত হয় ৷ কালো কষ্টি পাথরে মূর্ল্যবান মূর্তিটি পরবর্তিতে চট্রগ্রাম জেলার রাঙ্গুনিয়া উপজেলার বেতাগী গ্রামঅস্থ বেতাগী সার্বজনীন রত্নাংকুর বিহারে পূজা বেদিতে সংরক্ষিত আছে ৷ কর্ণফূলি নদীর তীর ঘেসা বেতাগী সার্বজনীন রত্নাংকুর বিহার ৷
আধুনিক নান্দনিকতায় দৃষ্টিনন্দন দ্বিতল বিহারটিতে কষ্টি পাথরের মূল্যবান সাগর বুদ্ধটি উচ্চতা ১.৩০মিটার এবং ০.৬০মিটার প্রশস্ত ৷ গবেষকদের ধারণা মূর্তিটি নবম থেকে একাদশ শতাব্দীর নির্মিত ৷৷ বুদ্ধ মূর্তিটির মূল বিষয়বস্তুু সিন্ধার্থ গৌতমের বৌধিঞ্জান লাভ ৷৷ বিহারের প্রবেশের গেটের ডান পাশ্বে রয়েছে আটাশ বুদ্ধের বুদ্ধমূর্তি,রয়েছে বুদ্ধের পদচিন্হ, ও ছোট বড় অসংখ্য বুদ্ধমূর্তি ৷ ঐতিহাসিক সাগর বুদ্ধ দেখতে নানা পূর্ণ্যাথীরা উপস্থিত হয় বেতাগী…

সাহাপুর মহাবন বৌদ্ধ বিহারে শুভ দানোত্তম কঠিন চীবর দান অনুষ্ঠিত

টিউলিপ এক্কা (রংপুর প্রতিনিধি): 
গত ২০শে অক্টোবর ২০১৯ রোজ রবিবার সাহাপুর মহানবন বৌদ্ধ বিহারের উদ্যাগে শুভ কঠিন চীবর দানোৎসব ও সংঘদান এবং ধর্মীয় আলোচনা হয়েছে অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব উত্তরবঙ্গের ধর্মীয় উপদেষ্টা, অধ্যক্ষ ও ময়নামতি কোটাবাড়ী বৌদ্ধ বিহারের অধক্ষ  শ্রীমৎ শীলভাদ্র মহাস্হবীর। 
তাছাড়া উক্ত অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত থাকেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার জনাব টি.এম, মমিন এর সাথে জনাব মোঃ শফিউর রহমান মন্ডল মিলন, ভাইস চেয়ারম্যান, উপজেলা পরিষদ, পীরগঞ্জ। এর সাথে উত্তরবঙ্গের কয়েকটি বিহারের ভিক্ষুসংঘ।

মহাসংঘনায়কের স্মৃতি মন্দির পরিদর্শনে বাংলাদেশ বৌদ্ধ কৃষ্টি প্রচার সংঘের নেতৃবৃন্দ

উজ্বল কান্তি বড়ুয়াঃ আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন মানবতাবাদী বৌদ্ধ মনিষা, বাঙ্গালী বৌদ্ধদের অবিসংবাদিত নেতা বাংলার নব অতীশ  অগ্রসার মহাকমপ্লেক্স, ধর্মরাজিক মহাবিহার, নব পন্ডিত বিহার, বুদ্ধ গয়ায় বাংলাদেশ বৌদ্ধ বিহার সহ বহু জনহিতকর প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা, একুশে পদক, মহাত্মা গান্ধী শান্তি পুরষ্কার প্রাপ্ত বিশ্বশান্তির অগ্রদূত, বাংলাদেশ বৌদ্ধ কৃষ্টি প্রচার সংঘ'র প্রতিষ্ঠাতা এবং আমৃত্যু সভাপতি, বিশ্ব বৌদ্ধ সৌভ্রাতৃত্ব সংঘ'র প্রতিষ্ঠা কালীন সদস্য, বাংলাদেশ বৌদ্ধ ভিক্ষু মহাসভার ২৪ তম মহামান্য মহাসংঘনায়ক শ্রীসদ্ধর্মভাণক বিশুদ্ধানন্দ মহাথেরোর পবিত্র জন্মজনপদ হোয়ারাপাড়া গ্রামে অগ্রসার মহাকমপ্লেক্সে তাঁর প্রতিষ্ঠিত অগ্রসার মেমোরিয়াল সোসাইটি অব বাংলাদেশ, অগ্রসার বৌদ্ধ অনাথালয় উচ্চ বিদ্যালয়, অগ্রসার বালিকা মহাবিদ্যালয়, অগ্রসার অনাথালয়, মহাসংঘনায়কের পবিত্র শ্মশান বেদীতে নির্মানাধীন স্মৃতিমন্দির ও বিভিন্ন প্রকল্প পরিদর্শন করেন বাংলাদেশ বৌদ্ধ কৃষ্টি প্রচার সংঘ'র সহ-সভাপতি, বিশ্ব বৌদ্ধ সৌভ্রাতৃত্ব সংঘ'র সহকারী মহাসচিব, বিশিষ্ট দানশীল ব্যক্তিত্ব মি. প্রমথ বড়ুয়া। সাথে ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী…

রাউজানে ধূমারপাড়া আনন্দ বিহারে কঠিন চীবর দান উদযাপন

উজ্বল কান্তি বড়ুয়া।
থেরবাদী বৌদ্ধদের অন্যতম প্রধান ধর্মীয় উৎসব দানোত্তম শুভ কঠিন চীবর দানোৎসবকে কেন্দ্র করে ধূমারপাড়া আনন্দ বিহারে ১৯ অক্টোবর শনিবার করুণাঘন বুদ্ধের অমিয় ধর্মসূধা জীব জগতের হিতে ও সুখে প্রচারের লক্ষে দিনব্যাপী দুই পর্বের অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে বাংলাদেশ বৌদ্ধ ভিক্ষু মহাসভার সভাপতি সদ্ধর্মজ্যোতি সুনন্দ মহাথের, প্রধান জ্ঞাতি ছিলেন সদ্ধর্মরত্ন জ্ঞানানন্দ মহাথের, অনুষ্ঠানের শুভ উদ্বোধন ঘোষনা করেন প্রজ্ঞাবারিধি অধ্যাপক সুমেধানন্দ মহাথের, প্রধান ধর্মদেশক ভদন্ত দেববংশ থের, প্রধান অতিথির আসন অলঙ্কৃত করেন বিশ্ব বৌদ্ধ সৌভ্রাতৃত্ব সংঘের সহকারী মহাসচিব প্রমথ বড়ুয়া, প্রধান বক্তা ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পালি ও বুড্ডিস্ট স্টাডিজ বিভাগের প্রাক্তন চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. বিমান চন্দ্র বড়ুয়া, বিশেষ অতিথি ছিলেন যথাক্রমে মহাসভার সহ-সভাপতি ভদন্ত দেবানন্দ মহাথের, মহাসভার যোগাযোগ সম্পাদক ভদন্ত ভদ্রিয় মহাথের, অগ্রসার মেমোরিয়াল সোসাইটি অব বাংলাদেশের মহাসচিব ভদন্ত সুমিত্তানন্দ মহাথের, বাংলাদেশ বৌদ্ধ কৃষ্টি প্রচার সংঘ- চট্টগ্রাম অঞ্চলের সাধারণ সম্পাদক অঞ্চল কুমার তালুকদার, প্রচার সংঘ- চট্রগ্রা…

এই সপ্তাহের কঠিন চীবর দানোৎসব(১৯ই অক্টোবর শনিবার-২৫ই অক্টোবর শুক্রবার)

১৯ অক্টোবর (শনিবার): কোর্টবাজার পাইন্যাশিয়া শান্তি নিকেতন বিহার, টেকনাফ হােয়াইক্ষ্যং শাক্যমুনি বিহার, মধ্যম হাশিমপুর সুনন্দারাম বিহার, আবুরখীল পন্ডিত ধর্মরাজ বিহার,উত্তর গুজরা ধুমারপাড়া আনন্দ বিহার, কেরামবৈদ্যের বাড়ী বৌদ্ধ বিবেকারাম বিহার, পূর্বগুজরা নন্দনকানন বৌদ্ধ বিহার ফৈয়রবাড়ী, পশ্চিম গহিরা শান্তিময় বিহার, উত্তর গুজরা ডােমখালী পরিনির্বাণ বিহার, রুদ্রপুর ধর্মরত্ন বিহার, আমতলী ড. জ্ঞানশ্রী সার্বজনীন বিহার, জয়চাঁদ বাড়ি ধর্মপাল বিহার, বাগােয়াল ফরাচিং বৌদ্ধ বিহার, চট্টগ্রাম বন্দর বৌদ্ধ বিহার, দত্তপুর লুম্বিনা কানন বৌদ্ধ বিহার, সােনাইছড়ি সার্বজনীন বৌদ্ধ বিহার, শিলক জেতবন বৌদ্ধ বিহার, জ্যৈষ্ঠপুরা শাক্যমুনি বিহার, করলডেঙ্গা বােধি বিহার।

২০ অক্টোবর (রবিবার): ছত্তরপিটুয়া পূৰ্ণানন্দ বৌদ্ধ বিহার, মেহেরআটি জঙ্গলীগােসাই বৌদ্ধ বিহার, বিলাইছড়ি বাজার সার্বজনীন বৌদ্ধ বিহার, পশ্চিম ইদিলপুর জ্ঞানবিকাশ বিহার, ছােট চাঁদপুর পূর্ণজ্যোতি বিহার, পশ্চিম সৈয়দ বাড়ি সার্বজনীন নালন্দা বৌদ্ধ বিহার।

২১ অক্টোবর (সােমবার): নলবুনিয়া ধর্মরত্ন বিহার(মরিচ্যা), নাইখাইন সন্তোষালয় বিহার, বাঁশখালী পুইছড়ি চন…

এই সপ্তাহের কঠিন চীবর দানোৎসব(১৪ই অক্টোবর সোমবার-১৮ই অক্টোবর শুক্রবার)

১৪ অক্টোবর (সােমবার): মরিচ্যা নলবুনিয়া ধর্মানন্দ বিহার, শাকপুরা সার্বজনীন তপোবন বিহার, রাউজান জ্ঞানােদয় বিহার, কেঁয়াগড় সার্বজনীন বৌদ্ধ বিহার, বাঙ্গালহালিয়া নন্দনবংশ আন্তর্জাতিক বিদর্শন ভাবনা কেন্দ্র, আবুরখীল জাদি বিহার, লাঠিছড়ি বেনুবন বিহার, পশ্চিম আধারমানিক নিগ্রোধারাম বিহার, রাঙ্গামাটি আসামবস্তী বুদ্ধ বিহার, জোরারগঞ্জ গােলকারাম বিহার, হরিণা অমৃতধাম বিহার, রাজঘাটাকুল সার্বজনীন ধর্মোদ্বয় বৌদ্ধ বিহার, পূর্ব আমুচিয়া ধর্মদূত বিহার। 

১৫ অক্টোবর (মঙ্গলবার): রাউজান আর্যমৈত্রীয় মহাপরিনির্বাণ বিহার, ঠেগরপুনি বড়গােসাই বৌদ্ধ বিহার, পাহাড়তলী মহানন্দ সংঘরাজ বিহার, উত্তর পুরানগড় সংঘশ্রী বিহার, সোনাইছড়ি রাজবিহার।  ১৬ অক্টোবর (বুধবার): ঠেগরপুনি সংঘরাজ শাক্যমুনি বিহার, দক্ষিণ হাশিমপুর বিজয়ারাম বিহার, উত্তর জয়নগন বোধিদ্রুম বিহার, বাটাপাহাড় শালবন বিহার, কুমিল্লা লগ্নসার আনন্দ বিহার, দক্ষিণ জয়নগর সার্বজনীন সুষেন বিহার, গহিরা অংকুরঘােনা প্রজ্ঞা নিকেতন বৌদ্ধ বিহার, উদালিয়া শান্তি নিকেতন বিহার, কুমিল্লা নৈরপাড় আর্য্যধাম বিহার, সোনারগাঁও লঙ্কারাম বিহার, সুখবিলাশ কাটাপাহাড় শালবন বিহার। 
১৭ অক…

সম্যক সংগঠনের ফানুসে "আবরার হত্যার" বিচারের দাবি

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যার বিচারের দাবিতে ফানুস উড়েছে চট্টগ্রামের আকাশে। ফানুসের গায়ে লেখা ছিল ‘জাস্টিস ফর আবরার’। রোববার (১৩ অক্টোবর) প্রবারণা পূর্ণিমার রাতে নগরীর নন্দনকাননে চট্টগ্রাম বৌদ্ধবিহার থেকে এ ফানুস ওড়ানো হয়েছে। এর আগে সেখানে ফানুস উৎসবের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী বিপ্লব বড়ুয়া। উদ্বোধনের পরই বিভিন্ন সংগঠন ও ব্যক্তিগত পক্ষ থেকে ফানুস ওড়ানো শুরু হয়। হাজারো মানুষের উপস্থিতিতে আনন্দমুখর পরিবেশে ফানুসের আলোয় আলোকিত হয়ে ওঠে আকাশ। এর মধ্যে আবরার স্মরণে ওড়ানো ফানুসটি নজর কাড়ে সবার। অনেকে আবেগাক্রান্তও হন।
 আবরারের স্মরণে ফানুসটি উড়িয়েছে  সম্যক - বৌদ্ধ তারুণ্য সংগঠন নামে সংগঠন। এর সভাপতি শুভ বড়ুয়া বলেন, আমরা আবরার হত্যার বিচার চাই। প্রবারণা পূর্ণিমায় ফানুস উড়িয়ে আমরা আবরারকে স্মরণ করছি। ভগবান গৌতম বুদ্ধ আমাদের শিক্ষা দিয়েছেন ‘জীব হত্যা মহাপাপ’। তার এই অমর বাণীকে গ্রহণ করতে না পারলে প্রকৃত বৌদ্ধ হওয়া দুস্কর হয়ে পড়বে। যে কোনো সাধারণ একটা প্রাণী হত্যাকেই যখন মহামতি বুদ্ধ পাপ বলেছেন, সেখানে সৃষ্টির সেরা জীব ‘মানুষ’কে হত্যা ক…

আজ শুভ প্রবারণা পূর্ণিমা

আজ শুভ প্রবারণা পূর্ণিমা। বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীর ধর্মীয় উৎসবের মধ্যেপ্রবারণা পূর্ণিমা একটি গুরুত্বপূর্ণ উৎসব। কেননা ধর্মীয় উৎসব এরএকদিকে যেমন ধর্মীয় তাৎপর্য আছে। ঠিক অন্যদিকে সম্প্রতি তৈরীর সেতু বন্ধন। বৌদ্ধদের সকল ধর্মীয় উৎসব প্রায় পূর্ণিমা তিথিতে পালিত হয়। ঠিক তেমনিভাবে প্রবারণা পূর্ণিমা, আশ্বিনী পূর্ণিমা তিথিতে পালিত হয়। প্রবারণা বা পালি ‘প্রবারণা' শব্দের। অর্থ অত্যন্ত ব্যাপক ও তাৎপর্য মণ্ডিত। পালি আভিধানিক অর্থে নিমন্ত্রণ, আহ্বান, মিনতি, অনুরােধ, নিষেধ, ত্যাগ, শেষ, সমাপ্তি, ভিক্ষুদের বর্ষাবাস পরিসমাপ্তি, বর্ষাবাস ত্যাগ, বর্ষাবাস ত্যাগের কার্য অথবা শিষ্টাচার, বিধি ইত্যাদি বােঝায়। তৃপ্তি বা সন্তুষ্টির বিষয়, ক্ষতিপূরণ, প্রায়শ্চিত্ত, ঋণ পরিশোধ অর্থেও প্রবারণা শব্দ প্রযােজ্য হয়। আবার দীর্ঘ নিকায়ের অর্থকথা অপরাধমূলক কর্ম বর্জন করে সত্য, ন্যায় এবং কুশল কর্মকে বর্ণ নির্দেশ করে। প্রবারণা পারস্পরিক মিলন উৎসব ও বটে। পূর্বকৃত সব ত্রুটি-বিচ্যুতি ক্ষমা করে পারস্পরিক মিলন ঘটে প্রবারণার মাধ্যমে। মূলত প্রবারণা বৌদ্ধ ভিক্ষুদের জন্য অবশ্য করণীয় একটি বিনয়িক বিধান। কথিত আছে, তথাগত বুদ্…

প্রবারণা পূর্ণিমা উদযাপন উপলক্ষে সিএমপি কমিশনারের সাথে বৌদ্ধ মতবিনিময়

আজ ১০ই অক্টোবর সকাল ১১ ঘটিকায় দামপাড়া পুলিশ লাইন্সস্থ সিএমপি’র সম্মেলন কক্ষে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার জনাব মোঃ মাহাবুবর রহমান, বিপিএম, পিপিএম মহোদয়ের সভাপতিত্বে আসন্ন প্রবারণা পূর্ণিমা উৎসব ২০১৯ উদযাপন উপলক্ষে বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বী নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।
উক্ত সভায় চট্টগ্রাম মহানগরী এলাকায় প্রবারণা পূর্ণিমা সুষ্ঠ, শান্তিপূর্ণ ভাবে সম্পাদনের লক্ষ্যে বিভিন্ন আলোচনা করা হয়। পুলিশ কমিশনার মহোদয় পুলিশের পক্ষ থেকে প্রবারনা পূর্ণিমা ২০১৯ উদযাপনকালে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় সর্বাত্মক সহযোগিতার আশ্বাস প্রদান করেন। বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বী নেতৃবৃন্দ কর্তৃক নিজস্ব স্বেচ্ছাসেবক টিম গঠন এবং তাদের পরিচিতির জন্য নির্ধারিত পোষাক/আইডি কার্ড/আর্ম-ব্যান্ড পরিধানের জন্য অনুরোধ জানান। এছাড়াও প্রবারণা পূর্ণিমা উৎসব সুষ্ঠ ও শান্তিপূর্ণ ভাবে উদযাপনের সুবিধার্থে মহিলা ও পুরুষদের জন্য আলাদা আলাদা প্রবেশ ও বহির্গমন পথের ব্যবস্থা করণের এবং নিরাপত্তার স্বার্থে অনুষ্ঠান স্থলে সিসি ক্যামেরা স্থাপনের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। প্রবারণা পূর্ণিমা উৎসবে মাদক, ছিনতাই এবং ইভটিজিং প্রতিরোধে পুলিশী অভিযান কার্যক্রম …

ভদন্ত উপেক্ষাপাল মহাথের মহোদয়ের মহাপ্রয়াণ

দীপ্ত বড়ুয়া (রঙ্গুনিয়া প্রতিনিধি)
"অনিচ্চা বত সংখারা - সংস্কার মাত্রই অনিত্য"
পশ্চিম শিলক গ্রামে, রাংগুনিয়া বিদর্শণ ভাবনা কেন্দ্রের অবস্তানরত পরিচালক,  বাংলাদেশ বৌদ্ধ ভিক্ষু মহাসভার প্রবীন সদস্য,রাংগুনিয়া কল্যাণ তহবিলে সহ-সভাপতি  ভদন্ত উপেক্ষাপাল মহাথের আজ সকাল ৬ ঘটিকায় মৃত্যু বরণ করেন, তাহাঁর পারলৌকিক সদগতি কামনা করুন।
তিনি ১৯৩৩ সালে ১লা জানুয়ারি, জন্মগ্রহণ করেন এবং প্রব্রজ্যা গ্রহণ করেন ১৯৫৬ সালে। তাঁর মাতার নাম সীতা বড়ুয়া ও বাবা দেবেন্দ্র লাল বড়ুয়া, ভান্তের গৃহী নাম অতীন্দ্র লাল বড়ুয়া।
আগামী কাল ১১ই অক্টোবর, শুক্রবার, পশ্চিম শিলক সার্বজনীন বিহার প্রাঙ্গনে প্রয়াত ভদন্ত উপেক্ষাপাল মহাথের মহোদয়ের অন্তেষ্ঠিক্রিয়া অনুষ্ঠান অনুষ্টিত হবে।
বুড্ডিস্ট নিউজের পক্ষ থেকে তাঁর প্রয়াণে গভীর শোক প্রকাশের সাথে সাথে আমাদের অর্জিত সকল পূণ্যরাশি তার পারলৌকিক সদগতি কামনায় দান করছি এবং ওনার পারলৌকিক শান্তি কামনা করছি।

চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজির সাথে বৌদ্ধ নেতৃবৃন্দের মতবিনিময়

চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি কার্যালয়ে আসন্ন বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের অন্যতম ধর্মীয় উৎসব প্রবারণা পূর্ণিমা উপলক্ষ্যে সম্মিলিত প্রবারণা পূর্ণিমা উদ্যাপন পরিষদের উদ্যোগে বৌদ্ধ প্রতিনিধিদের সাথে মতবিনিময় সভা অদ্য ৯ই অক্টোবর সকাল ১০ ঘটিকায় চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি খন্দকার গোলাম ফারুকের সভাপতিত্বে মিথুন বড়ুয়ার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত হয়।
চট্টগ্রাম জেলার প্রতিটি বৌদ্ধ বিহারে ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠান ও আকাশ প্রদীপ প্রজ্জ্বলন নির্বিঘে পালন করার জন্য সাবির্ক নিরাপত্তা বিষয়ে আলোকপাত করে বক্তব্য রাখেন-চট্টগ্রাম রেঞ্জের এডিশনাল ডিআইজি মোহাম্মদ আবুল ফয়েজ, চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ সুপার নুরে আলম মিনা বিপিএম (বার), পিপিএম, পুলিশ সুপার (অপারেশনস), চট্টগ্রাম রেঞ্জ মোহাম্মদ হাসান বারী নুর, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ওএন্ডসি), মাহমুদা বেগম, সহকারী পুলিশ সুপার আকলিমা আক্তার, সহকারী পুলিশ সুপার মান্না দে, বাংলাদেশ বৌদ্ধ সমিতির চেয়ারম্যান অজিত রঞ্জন বড়য়া, ভাইস চেয়ারম্যান লায়ন আদর্শ কুমার বড়য়া, বাংলাদেশ বৌদ্ধ কৃষ্টি প্রচার সংঘের সিনিয়র সহ-সভাপতি ড. বিকিরণ প্রসাদ বড়য়া, প্রকৌশলী পরিতোষ কুমার বড়য়া, অরুণ কুমার বড়য়া, অঞ্চল কুমার তালুকদা…

উপসংঘরাজ সত্যপ্রিয় মহাথের ভান্তের মহাপ্রয়াণ

"অনিচ্চা বত সংখারা - সংস্কার মাত্রই অনিত্য"

রামু কেন্দ্রীয় সীমা বিহারের বিহার আধি-পতি বাংলাদেশ সংঘরাজ ভিক্ষু মহাসভার উপ-সংঘরাজ ভদন্ত সত্যপ্রিয় মহাথের মহাদয় আজ ৪ অক্টোবর মধ্যরাত ১২টা ৫০মিনিটে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে  পরোলোক গমন করেছেন।
সত্যপ্রিয় মহাথের ১৯৩০ সালের ১০ জুন কক্সবাজার জেলার রামু উপজেলার পশ্চিম মেরংলোয়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। সমাজসেবায় অবদানের জন্য তিনি ২০১৫ সালে বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক প্রদত্ত “একুশে পদক” লাভ করেন।
গত ১৫ সেপ্টেম্বর উপসংঘরাজ সত্যপ্রিয় মহাথেরকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি কর হয়।
বুড্ডিস্ট নিউজে২৪ এর পক্ষ থেকে ভান্তের প্রয়াণে গভীর শোক প্রকাশের সাথে সাথে আমাদের অর্জিত সকল পূণ্যরাশি তার পারলৌকিক সদগতি কামনায় দান করছি এবং ওনার পারলৌকিক শান্তি কামনা করছি।