Skip to main content

প্রফেসর ড.বিকিরণ প্রসাদ বড়ুয়ার হীরক জয়ন্তী উদযাপন ও আজীবন সম্মাননা অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার ঘোষিত ২০২০ সালের একুশে পদকের জন্য মনোনিত ব্যক্তিত্ব, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থবিদ্যা বিভাগের সাবেক চেয়ারম্যান, খ্যাতিমান শিক্ষাবিদ, গবেষক ও বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রফেসর ড.বিকিরণ প্রসাদ বড়ুয়ার ৭৫তম জন্মদিন উপলক্ষে হীরক জয়ন্তী উদযাপন ও আজীবন সম্মাননা পর্ষদ অনুষ্ঠান আজ ১১ ফেব্রুয়ারি বিকেল ৩টায় চট্টগ্রাম রেলস্টেশনস্থ মোটেল সৈকতে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

অনুষ্ঠানে সভাপত্বি করেন হীরক জয়ন্তী উদযাপন ও আজীবন সম্মাননা পর্ষদের আহবায়ক ইউএসটির সাবেক উপাচার্য ডা. প্রফেসর প্রভাত চন্দ্র বড়ুয়া। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রফেসর ড. অনুপম সেন। চম্পাকলি বড়ুয়ার সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ব বিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য ড.আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, প্রফেসর কনক কান্তি বড়ুয়া, প্রফেসর ড. মোহাম্মদ নুরুল মোস্তফাসহ বিভিন্ন সুগঠনের সদস্যবৃন্দ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ২১শে পদক প্রাপ্ত ড. প্রণব বড়ুয়া, সাউদার্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড.মোহাম্মদ নুরুল মোস্তফা, বি জি সি ট্রাস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের  উপাচার্য প্রফেসর ড.সরোজ কান্তি হাজারী।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, গুনীজনকে সম্মান জানানো হলে সমাজে গুনীজন তৈরী হবে। ড. বিকিরণ প্রসাদ বড়ুয়া শিক্ষকতার পাশাপাশি দেশ ও সমাজের জন্য অনেক কাজে গুরুত্বপুর্ণ অবদান রেখেছেন।

Comments

Popular posts from this blog

চান্দগাঁও সার্বজনীন শাক্যমুনি বিহারে ৬ দিন ব্যাপী “পট্ঠান” পাঠ ও গণপ্রব্রজ্যা

ঐতিহ্যবাহী চান্দগাঁও সার্বজনীন শাক্যমুনি বৌদ্ধ বিহারে ২২শে ফেব্রুয়ারী রোজ শনিবার  থেকে ২৭ ফেব্রুয়ারি রোজ বৃহস্পতিবার ২০২০ ইংরেজী পর্যন্ত দিবা-রাত্রি ৬ (ছয়) দিনব্যাপী  “তথাগত বুদ্ধ” ভাষিত অভিধর্ম পিটকের “পট্ঠান” পাঠ ও গনপ্রব্রজ্যা অনুষ্ঠিত হবে।
২২শে ফেব্রুয়ারী শনিবার গনপ্রব্রজ্যা, ভৈষজ্য সংঘদান ও পট্ঠানপাঠ আরম্ভ হয়ে ২৭শে ফেব্রুয়ারী বৃহস্পতিবার অষ্ঠপরুস্কারসহ সংঘদানের মাধ্যমে পট্ঠন পাঠ সমাপ্ত হবে।
পট্ঠান পাঠ পরিচালনা করবেন বহু ত্রিপিটক গ্রন্থের অনুবাদক, ধ্যানাচার্য ও ধুতাঙ্গধারী, উত্তর জলদী শ্মশানভূমি প্রজ্ঞাদর্শন মেডিটেশন সেন্টার এর মহাপরিচালক ভদন্ত জ্ঞানেন্দ্রিয় স্থবির।

সহ- উপসংঘনায়ক আনন্দ মিত্র মহাথের "চন্দ্রজ্যোতি শান্তি স্বর্ণপদক" মনোনয়ন লাভ

উজ্বল কান্তি বড়ুয়াঃ বাংলাদেশ বৌদ্ধ ভিক্ষু মহাসভার ২২তম সংঘনায়ক, ঐতিহ্যবাহী খৈয়াখালী রত্নাঙ্কুর বিহারের প্রতিষ্ঠাতা, ৬ষ্ঠ সংগীতিকারক মহামান্য সংঘনায়ক চন্দ্রজ্যোতি মহাথের মহোদয়ের ৫৪তম প্রয়াণ বার্ষিকীকে কেন্দ্র করে আজ খৈয়াখালী রত্নাঙ্কুর বিহার পরিচালনা কমিটির সাধারণ সভায় বাংলাদেশ বৌদ্ধ ভিক্ষু মহাসভার সহ-উপসংঘনায়ক, বাংলাদেশ বৌদ্ধ ভিক্ষু সম্মীলনীর আজীবন সভাপতি, পূর্বগুজরা সার্বজনীন মৈত্রী বিহারের নবরূপাকার বিহারাধ্যাক্ষ সহ- উপসংঘনায়ক আনন্দমিত্র মহাথের মহোদয়কে সর্বসম্মতিক্রমে ২০২০ সালের জন্য "চন্দ্রজ্যোতি শান্তি স্বর্ণপদক" মনোনীত করেন। 
উল্লেখ্য আগামী ১ মে ২০২০ খ্রি., শুক্রবার সংঘনায়ক চন্দ্রজ্যোতি মহাথের'র ৫৪তম প্রয়াণ দিবসে যথাযথ ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর পরিবেশে নানা অনুষ্ঠান মালার মধ্য দিয়ে সহ-উপসংঘনায়ক আনন্দ মিত্র মহাথের'কে স্বর্ণপদকে ভূষিত করা হবে।

তুলিপ এক্কা শ্রেষ্ঠ শিক্ষক নির্বাচিত

রংপুর হিরোয়োশি জে এস ফুকুই বৌদ্ধ বিহার এর কেন্দ্র শিক্ষক তুলিপ এক্কা গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার বৌদ্ধ ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্ট ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় এর অধীনে উত্তরঙ্গের ৫টি প্যাগোডা ভিত্তিক প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষা প্রকল্প (২য় পর্যায়) মধ্যে শ্রেষ্ঠ শিক্ষক মর্যাদা অর্জন করছেন। 
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার  প্যাগোডা ভিত্তিক প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষা প্রকল্প(২য়) পর্যায় বৌদ্ধ ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্ট, ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় এর আওতাধীন, উত্তরবঙ্গের (রংপুর, দিনাজপুর, জয়পুরহাট ও নওগাঁ) জেলা তে মোট ০৫ টি শিক্ষা কেন্দ্র চালু হয় গত বছর। 
গত ২০শে জানুয়ারি শ্রেষ্ঠ শিক্ষক এর নাম ঘোষণা করা হয়। তুলিপ এক্কা রংপুর হিরোয়োশি জে এস ফুকুই বৌদ্ধ বিহার এর কেন্দ্র শিক্ষক এবং বৌদ্ধ ধর্মীয় নিউজ পোর্টাল বুড্ডিস্ট নিউজের রংপুর প্রতিনিধি।