পাকিস্তানে ১২০০ বছরের পুরনো বৌদ্ধ নিদর্শন নষ্ট, প্রতিবাদে ভারত

পাকিস্তানের গিলগিট বালতিস্তানে ১২০০ বছর পুরনো একটি বৌদ্ধ সংস্কৃতির শিল্পকার্যকে সাম্প্রতিককালে নষ্ট করা হয়েছে। পাহাড়ের গায়ে আঁকা এই বৌদ্ধ শিল্পকলার ছবি পাকিস্তানে কেন নষ্ট করে দেওয়া হল, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে ভারত, চেয়েছে পাকিস্তানের জবাব।

৮০০ খিস্টাব্দের এই সমস্ত বৌদ্ধ নিদর্শন ধ্বংস করে উপরে কালি লেপে দেওয়া হয়েছে। ভারত এর তীব্র নিন্দা করেছে। ওই নিদর্শনগুলি রক্ষা করার জন্য ভারতীয় বিশেষজ্ঞদের প্রবেশাধিকার চাওয়া হয়েছে।

বৌদ্ধ খোদাইকৃত ভাষ্কর্যের ভাঙচুরের ঘটনাটি প্রকাশ্যে এসেছে গত মঙ্গলবার। পাক-অধিকৃত কাশ্মীর বা পিওকে-র গিলগিট-বালটিস্তানের চিলাস এলাকায় পাথরে খোদাই করা বুদ্ধমূর্তি শুধু ভাঙা হয়নি, সেই শিলার উপর বৌদ্ধদের অবমাননাকারী বিভিন্ন স্লোগান লেখা হয়েছে। আঁকা হয়েছে পাকিস্তানের জাতীয় পতাকা।

একটি সূত্রের দাবি পাকিস্তান ও চিনের যৌথ উদ্যোগে ডায়ামারভাশা বাঁধ প্রকল্পের প্রতিবাদ করেছিলেন স্থানীয় বৌদ্ধরা। কারণ বাঁধটির নির্মাণ হলে তা ওই প্রত্নতাত্ত্বিক স্থানটিকে সম্পূর্ণ ধ্বংস করে দিতে পারে। সেই প্রতিবাদীদের প্রতিশোধ নিতেই এই জঘন্য কাজ ঘটিয়েছে অজ্ঞাত পরিচয় কিছু দুষ্কৃতী।

২০০১ সাল। বামিয়ান প্রদেশে ১৫০০ বছরের পুরনো দু’টি বুদ্ধমূর্তি ধ্বংস করেছিল আফগানিস্তানের তৎকালীন তালিবান শাসকরা। সেই ঘটনা নাড়িয়ে দিয়েছিল গোটা বিশ্বকে। আর ২০২০ সালে পাক অধিকৃত কাশ্মীরের (PoK) তথাকথিত গিলগিট-বালটিস্তানে ধ্বংস করা হল ১২০০ বছর পুরনো বৌদ্ধ পুরাতাত্ত্বিক নিদর্শন। পাথরের উপরে খোদাই করা বুদ্ধমূর্তির ক্ষতি করে সেগুলির উপরে লেপে দেওয়া হয়েছে কালি। আঁকা হয়েছে পাকিস্তানের পতাকাও! সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে বিষয়টি প্রকাশ্যে আসার পরে বুধবার ভারতের তরফে এর তীব্র প্রতিবাদ জানানো হয়েছে। একইসঙ্গে বেআইনিভাবে দখল করে রাখা সমস্ত ভারতীয় এলাকা অবিলম্বে খালি করে দেওয়ার জন্য পাকিস্তানের কাছে দাবি জানিয়েছে নয়াদিল্লি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here