৩৮ তম বিসিএস সাফল্যে পাহাড় থেকে সমতলে

0
280

গত মঙ্গলবার (৩০ জুন) বিকালে সরকারি কর্ম কমিশনের (পিএসসি) বিশেষ সভায় দুই হাজার ২০৪ জনকে বিসিএস ক‍্যাডারে নিয়োগের সুপারিশ করা হয়। বিকালে পিএসসির প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

৩৮তম বিসিএস ক‍্যাডারে এ সমতলীয় ও পাহাড়ি বৌদ্ধ সন্তানরা কৃতিত্ত্বের সাথে যোগ্যতার প্রমাণ রাখেন।

অংমেচিং মারমা ৩৮তম বিসিএস (প্রশাসন) ক‍্যাডারে উত্তীর্ণ 
অংমেচিং খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা সদর উপজেলার য়ংড বৌদ্ধ বিহারের পার্শ্ববর্তী বাজার দক্ষিণ মাথাড় সন্তান। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দর্শন বিভাগ থেকে শিক্ষা জীবন সমাপ্ত করেন ।
পাপিয়া বড়ুয়া ৩৮তম বিসিএস (শিক্ষা) ক‍্যাডারে উত্তীর্ণ 
পাপিয়া চট্টগ্রাম জেলার ফটিকছড়ি উপজেলার আবদুল্লাপুরের গ্রামের ব্যাংকার মুকুন্দ বিহারী বড়ুয়া ও শিক্ষিকা সুপ্রিয়া রানী বড়ুয়ার প্রথম সন্তান।
উল্লেখ্য, সে শিক্ষা ক‍্যাডারে দর্শন বিভাগে নেয়া ৩৯ জনের ভেতর প্রথম হয়েছে।
অংচিং মার্মা ৩৮তম বিসিএস (প্রশাসন) ক‍্যাডারে উত্তীর্ণ 
অংচিং বান্দরবান জেলার লামা ফাঁসিয়া খালীর ত্রিডেবার সন্তান। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সর্বোচ্চ ডিগ্রি নিয়ে লামা জনতা ব্যাংকে সিনিয়র অফিসার পদে কর্মরত আছেন।
জুয়েল চাকমা ৩৮তম বিসিএস (পুলিশ) ক‍্যাডারে উত্তীর্ণ
জুয়েল রাঙামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলার বাঘাইছড়ি ইউনিয়নের উগলছড়ি সন্তান। তিনি বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) এর একজন মেধাবী ছাত্র ছিলেন।
প্রকৌশলী সনদ বড়ুয়া ৩৮তম বিসিএস পুলিশ ক‍্যাডারে উত্তীর্ণ :

ফটিকছড়ি উপজেলার ধর্মপুর গ্রামের সন্তান। তাঁর পিতা পরিবার পরিকল্পনা পরিদর্শক দেবপ্রিয় বড়ুয়া ও মা ঝর্না বড়ুয়া সমাজসেবা অধিদপ্তরে কর্মরত ছিলেন । তারা দুই ভাই এক বোন।

মাইকেল বড়ুয়া ৩৮তম বিসিএস শিক্ষা ক‍্যাডারে উত্তীর্ণ 
মাইকেল বড়ুয়ার গ্রামের বাড়ি চট্টগ্রাম জেলার মিরশ্বরাই উপজেলার মায়ানী গ্রামে।

তার পিতা মৃত পরেশ বড়ুয়া এবং মাতা দয়া বড়ুয়া। পাঁচ ভাই বোনের মধ্যে সে চতুর্থ।

মাইকেল বড়ুয়া ২০০৬ সালে আবুতোরাব উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি, ২০০৮ সালে চট্টগ্রাম সরকারি কর্মাস কলেজ থেকে এইসএসসি পাশ করেন।

উভয় পরীক্ষার ফলাফলে সে জিপিএ ৫ পাওয়ার গৌরব অর্জন করেন।

পরবর্তীতে ঢাকার জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন এবং সেখান থেকে ম্যানেজমেন্ট ষ্টাডিজ বিষয়ের উপর গ্রেজুয়েশন শেষ করেন।
বর্তমানে মাইকেল বড়ুয়া জনতা ব্যাংকে সিনিয়র অফিসার হিসেবে কর্মরত আছেন।
হিল্লোল চাকমা ৩৮তম বিসিএস (প্রশাসন) ক‍্যাডারে উত্তীর্ণ 
হিল্লোল খাগড়াছড়ি জেলার মহালছড়ি উপজেলার বাবুপাড়া গ্রামে।

তার পিতা শান্তি জীবন চাকমা নানিয়ার চর ইউনিয়ন পরিষদে সচিব ও মাতা শশী রাণী চাকমা গৃহিনী।

তিন ভাই বোনের মধ্যে দ্বিতীয় হিল্লোল চাকমা

মিলন চাকমা ৩৮তম বিসিএস (প্রশাসন) ক‍্যাডারে উত্তীর্ণ 
মিলন খাগড়াছড়ির পানছড়ি উপজেলায় ২ নং চেঙ্গী ইউনিয়নে কিনাধন বৈদ্য পাড়ার সন্তান ।
ডিভাইন চাকমা ৩৮তম বিসিএস (পররাষ্ট্র) ক‍্যাডারে উত্তীর্ণ :
ডিভাইন খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা, পানছড়ি উপজেলার দুর্গম এলাকা ধুদুকছড়া গ্রা‌মের সন্তান।
লিমন বড়ুয়া ৩৮তম বিসিএস শিক্ষা ক‍্যাডারে উত্তীর্ণ 
লিমন বাঁশখালীর উত্তর জলদী গ্রামের বাবুল বড়ুয়া ও সবিতা বড়ুয়ার বড় ছেলে।

তিনি ২০১৮ সালে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ফলিত পদার্থ বিদ্যা, ইলেকট্রনিকস এবং কমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ থেকে কৃতিত্বের সাথে এমএসসি ডিগ্রি অর্জন করেন।

এর আগে ২০০৭ সালে এসএসসি ও ২০০৯ সালে এইচএসসি পরীক্ষায়ও কৃতিত্বের সাথে উত্তীর্ণ হয়।

মাচি চিং মারমা ৩৮তম বিসিএস (আনসার) উত্তীর্ণ 
মাচি চিং খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা সদর উপজেলার গুগড়াছড়ি গ্রা‌মের সন্তান। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে রসায়ন বিভাগের প্রাক্তন শিক্ষার্থী।
৩৮তম বিসিএসের মৌখিক পরীক্ষায় অংশ নেন ৯ হাজার ৮৬২ জন।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ৩৮তম বিসিএস পরীক্ষার প্রার্থীদের মধ্য থেকে বিসিএস (প্রশাসন) ক্যাডারে ৩০৬ জন, বিসিএস (পুলিশ) ক্যাডারে ১০০ জন, বিসিএস (পররাষ্ট্র) ক্যাডারে ২৫ জন, বিসিএস (কর) ক্যাডারে ৩৫ জন, বিসিএস (নিরীক্ষা ও হিসাব ) ক্যাডারে ৪৫ জন, বিসিএস (আনসার) ক্যাডারে ৩৮ জন, বিসিএস (কৃষি) ক্যাডারে ২৪১ জন, বিসিএস (মৎস্য) ক্যাডারে ২০ জন, বিসিএস (স্বাস্থ্য) ক্যাডারে ২৯১ জন, বিসিএস (পশুসম্পদ) ক্যাডারে ৮৫ জন, বিসিএস (বন) ক্যাডারে ২২ জন, বিসিএস (গণপূর্ত) ক্যাডারে ৯৭ জন, বিসিএস (সাধারণ শিক্ষা ও কারিগরি কলেজ) ক্যাডারে ৭৬৮ জনসহ বিভিন্ন সর্বমোট দুই হাজার ২০৪ জন প্রার্থীকে সুপারিশ করা হয়েছে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here