পাল্টা মামলার হুমকি বাতিঘরের স্বত্ত্বাধিকারীর

0
527

বই বিপণী ও প্রকাশনা সংস্থা ‘বাতিঘরের’ স্বত্ত্বাধিকারীর বিরুদ্ধে ‘ধর্মানূভুতিতে আঘাত’ দেওয়ার অভিযোগে চট্টগ্রামের একটি আদালতে ১০ কোটি টাকার মানহানির মামলা দায়ের হয়েছে।

‘লোশক’ নামে একটি বই প্রকাশের মাধ্যমে বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের অনুভূতিতে আঘাতের অভিযোগে রূপায়ন কান্তি চৌধুরী নামে এক ব্যক্তি মানহানির এই মামলার দায়ের করেন।

মামলায় লোশকের ‘প্রকাশক’ হিসেবে বাতিঘরের স্বত্বাধিকারী দীপংকর দাশ এবং লেখক সালেহ আহমেদ মুবিনকে অভিযুক্ত করা হয়েছে।

তবে ভুল অভিযোগে মামলা দায়ের করে বাতিঘরের সুনাম ক্ষুণ্ন করার অভিযোগ এনে পাল্টা মানহানির মামলা করা হবে বলে জানিয়েছেন বাতিঘরের স্বত্ত্বাধিকারী দীপংকর দাশ।

গত বুধবার (১২ আগস্ট) মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট খায়রুল আমীনের আদালতে মামলাটি দায়ের করা হয়।

গতকাল রোববার (১৬ আগস্ট) আদালত মামলার আরজি গ্রহণ করে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।

এ বিষয়ে বাতিঘরের স্বত্বাধিকারী দীপংকর দাশ বলেন, ‘মামলায় বলা হয়েছে আমি বইটির প্রকাশক।

কিন্তু লোশক বইটি বাতিঘর থেকে প্রকাশিত নয়। শুধুমাত্র বিক্রির জন্য রেখেছিলাম এবং পাঠকদের জন্য ফেসবুক পেইজে একটি রিভিউ দিয়েছিলাম।

এ বিষয়ে আলোচনা ওঠায় আমরা ওই রিভিউটি সরিয়ে নিয়েছি। বইটিও বিক্রি করছি না।

অর্থাৎ ভুল তথ্য দিয়ে মামলা করে বাতিঘরের সুনাম ক্ষুণ্ন করা হয়েছে।

এতে আমাদের যে মানহানি হয়েছে সেজন্য আমরাও মানহানির মামলা করার কথা ভাবছি।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here