আমি ‘ষড়যন্ত্র’র শিকার: ডা. উত্তম কুমার বড়ুয়া

0
417

দুর্নীতির মামলার পরিপ্রেক্ষিতে ওএসডি হওয়ার পর ঢাকার শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক অধ্যাপক ডা. উত্তম কুমার বড়ুয়া দাবি করেছেন, তিনি আওয়ামী লীগ সমর্থক এক চিকিৎসক নেতার ‘ষড়যন্ত্র’র শিকার হয়েছেন।

নিজের বিদায় ‍উপলক্ষে বৃহস্পতিবার সোহরাওয়ার্দী হাসপাতাল মিলনায়তনে আয়োজিত এক মতবিনিময় সভায় তিনি এই দাবি করেন।

ডা. উত্তম বড়ুয়া দাবি করেন, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের (স্বাচিপ) গত নির্বাচনকে কেন্দ্র করে তার বিরুদ্ধে ‘ষড়যন্ত্র’ হচ্ছে।

যন্ত্রপাতি কেনাকাটায় দুর্নীতির অভিযোগে গত ২৯ অক্টোবর উত্তম কুমারের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা করে স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ।

এরপর গত ৩ অক্টোবর পরিচালকের পদ থেকে সরিয়ে তাকে বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওএসডি) করা হয়।

ডা. উত্তম কুমার অভিযোগ করেছেন স্বাচিপের মহাসচিব ডা. এম আজিজের বিরুদ্ধে। তবে তিনি এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

অধ্যাপক ডা. ইকবাল আর্সনাল ও ডা. আজিজ নেতৃত্বাধীন স্বাচিপের বর্তমান কমিটিতে যুগ্ম-মহাসচিব পদে আছেন ডা. উত্তম কুমার।

তিনি বলেন,

স্বাচিপের গত নির্বাচনে তিনিও মহাসচিব প্রার্থী ছিলেন।

কিন্তু প্রধানমন্ত্রী তাকে যুগ্ম মহাসচিব পদে রেখে কমিটি করে দিলে তা মেনে নেন তিনি।

“গত তিন বছর একটি শব্দ, একটি লাইন, একটি কথা আমি মহাসচিবের বিরুদ্ধে উচ্চারণ করিনি। আমি কথা বললে তারা মনোক্ষুণ্ন হতে পারেন, এ কারণে আমি কোনো বৈঠকে যাইনি।

“কিন্তু আমার এই মহাসচিব হিংসায়… আমাকে ছাড়েননি। আজকে যা কিছু দেখছেন আমি স্পষ্টভাবে বলছি তারই নেতৃত্বে হচ্ছে। তার কিছু প্রেতাত্মা আমার হাসপাতালে আছে। এই প্রেতাত্মারা জড়িত।”

নিজেকে দুর্নীতিমুক্ত দাবি করে তিনি বলেন,

“আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে গিয়ে বলব, আমাকে দুর্নীতিবাজ বানাতে চাচ্ছে, আমাকে চোর বানাতে চাচ্ছে।

আমি চোর না, আমি দুর্নীতিবাজ না। প্রমাণ করুন, প্রমাণ করে তারপর বলুন আমি দুর্নীতিবাজ।”

ডা. উত্তমের অভিযোগের বিষয়ে ডা. আজিজ বলেন,

“আমি তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করতে যাব কোন দুঃখে? তার সঙ্গে আমার কোনো বিরোধ নেই।

এখন একটা শুদ্ধি অভিযান চলছে। তার বিরুদ্ধে একটা অভিযোগ তদন্ত করে প্রক্রিয়া অনুযায়ী মন্ত্রণালয় ব্যবস্থা নিচ্ছে। এখানে তো আমার কিছু করার নেই।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here